আমলকির উপকারিতা ও অপকারিতা জেনে নিন।

আজ আমি আমলকির উপকারিতা ও অপকারিতা নিয়ে আলোচনা করব।  আমলকি ফলটি কমবেশ আমরা সবাই জানি।

অন্যান্য ফলের তুলনায় আমলকির উপকারিতা অনেক চা খেলেই আপনি উপলব্ধি করতে পারবেন।

অনেকদিন আগেই আমলকির গাছ  মানুষের ঘরের ছাদে দেখা যেত। কিন্তু এখন এর পরিমাণ খুবই কম।

এই আমলকি ফলে একটি ভিটামিন রয়েছে এর নাম হল ভিটামিন সি যা আমাদের ত্বককে সুস্থ রাখে। আমাদের মধ্যে অনেকেই ভিটামিন ট্যাবলেট খেয়ে থাকি।

তাই আমি তাদেরকে পরামর্শ দিব আপনারা আমলকি খেতে পারেন তা আপনাদের জন্য ভিটামিনের ঘাটতি পূরণে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে ইনশাআল্লাহ। চলুন জেনে নেই আমলকির কিছু উপকারিতা। 

আরো পড়ুনঃ ওটস এর উপকারিতা

Contents hide

দ্রুত হজমে আমলকির উপকারিতা (আমলকির উপকারিতা ও অপকারিতা)

আমাদের মধ্যে অনেকেই খাওয়া দাওয়া ঠিকঠাক ভাবে না করার কারণে খাবার আমাদের পেটে হজম হয় না।

বিশেষ করে এই সমস্যায় অধিকাংশ লোকই ভুগে। যার ফলে আমাদের দেহে পরিমাণমতো পুষ্টি সরবরাহ হয় না।

তাই যারা এই হজম সমস্যায় ভুগছেন, তাদেরকে আমি বলব আপনারা আমলকি প্রতিদিন খেতে পারেন। তাহলে ইনশাল্লাহ আপনার হজম ক্রিয়ার উন্নতি ঘটবে। 

বমি দূর করতে আমলকি (আমলকির উপকারিতা ও অপকারিতা)

আমলকি আমাদের বমি ভাব দূর করতে সহায়ক ভূমিকা পালন করে।

আমাদের মধ্যে অনেকেই আছে যারা যানবাহনে চড়ার সময় অথবা স্থান থেকে অন্য স্থানে ভ্রমণের সময় বমি করে থাকি।

তাই আমি তাদেরকে পরামর্শ দিব আপনারা যে কোন জায়গায় যাওয়ার আগে ভাত খাওয়ার পরেই আমলে কি খেতে পারেন। 

মস্তিষ্কের কার্যক্ষমতা বৃদ্ধিতে আমলকি (আমলকির উপকারিতা ও অপকারিতা)

মস্তিষ্কের কার্যক্ষমতা বৃদ্ধিতে আমলকি খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। আমলকি আমাদের মাথার রক্ত চলাচলকে আরো সচল করে তোলে।

এবং এর কার্যক্ষমতা অসাধারণ ভাবে বৃদ্ধি করে যা অন্যান্য ফল আমলকির মতো করতে সক্ষম নয়। 

হৃদযন্ত্র সুস্থ রাখতে আমলকি 

আমরা যদি প্রতিদিন আমলকি খাই তাহলে আমাদের হৃদযন্ত্র সুস্থ থাকবে।

পাশাপাশি আমাদের হৃদয় এবং ফুসফুসের কার্যক্ষমতা বৃদ্ধিতে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে। 

রক্তের সুগার নিয়ন্ত্রণে আমলকি 

আপনি যদি ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করতে চান, তাহলে প্রথমে আপনার রক্তের সুগার নিয়ন্ত্রণ করতে হবে।

তাই আমি আপনাদের বলব আমলকি খান। আর রক্তের সুগার নিয়ন্ত্রণ করুন। 

কোলেস্টরেল উপশমে আমলকির উপকারিতা

প্রত্যেকের শরীরে দুইটি কোলেস্টেরল আছে। একটি হচ্ছে ভালো যা আমাদের জন্য খুবই উপকারী।

আর অন্যটি খারাপ কোলেস্টেরল যা দেহকে ক্ষতিগ্রস্ত করে।

আর এই আমলকি খেলে আপনার শরীরের খারাপ কোলেস্টেরলকে কমিয়ে হৃদযন্ত্র কে সুস্থ রাখবে যা গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে। 

ভিটামিন বাড়াতে আমলকি (আমলকির উপকারিতা ও অপকারিতা)

আমাদের মধ্যে অনেকেরই ভিটামিনের অভাবে শরীর অস্বস্তি বোধ করে। বিশেষ করে আমি আমার নিজস্ব অভিজ্ঞতা আপনাদের সাথে শেয়ার করছি।

গত বছর আমার জ্বর হওয়ার কারণে প্রায় এক বছর যাবত ভুগতে হয়েছে। এর কারণ হচ্ছে আমার শরীর ভিটামিনের অভাব।

তাই আমি বিভিন্ন ধরনের ভিটামিন ট্যাবলেট খেয়েছি।

তাই এই ট্যাবলেট না খেয়ে আপনি যদি আমলকি খান, ইনশাল্লাহ আপনার দেহে ভিটামিন বিটামিন বি, বি১, বি২ এবং সি সকল ধরনের ঘাটতি পূরণ হবে। 

ত্বকের উজ্জলতা বৃদ্ধিতে আমলকি 

আমাদের মধ্যে কে না চায় তার ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পাক অথবা সুন্দর দেখাক। আমলকি খেলে আপনার ত্বকের লাবণ্য বৃদ্ধি পাবে।

কেননা এতে একটি বিশেষ উপাদান আছে যার নাম হচ্ছে এন্টিঅক্সিডেন্ট।

উপাদানটি আমাদের মুখের উপর কালো দাগ দূর করতে সহায়ক ভূমিকা রাখে।

রক্ত পরিষ্কার করতে আমলকি 

আমাদের শরীরে রক্ত যদি পরিষ্কার না থাকে,তাহলে বিভিন্ন ধরনের মরণব্যাধি রোগ হয়।  যা আমার মার হয়েছিল।

তাই আপনি যদি রক্ত পরিষ্কার রাখতে চান, তাহলে অবশ্যই আমলকি খান।

যার ফলে আপনি বিভিন্ন মারাত্মক ব্যাধি থেকে রক্ষা পাবেন ইনশাল্লাহ।

সর্দি কাশি সারাতে আমলকি 

সর্দি-কাশি খুবই বিরক্তিকর রোগ যা আমরা কমবেশি সবাই ভুগে থাকি। সর্দি কাশি সারাতে আমলকি হতে পারি আপনার জন্য মহা ঔষধ।  

হাঁপানি ও ব্রংকাইটিস রোগ থেকে বাঁচার উপায় 

আমাদের মধ্যে যারা বয়স্ক লোক আছে তারা অনেকেই হাঁপানি ও ব্রংকাইটিস রোগের শিকার। তাই তাদের প্রতিদিন আমলকি খাওয়া উচিত এই রোগ থেকে বাঁচতে হলে। 

আমলকির মধ্যেই একটি বিশেষ উপাদান আছে যা হাঁপানি ও ব্রংকাইটিস রোগ থকে বাঁচতে সহায়তা করে। 

রুচি বৃদ্ধিতে আমলকি 

আমাদের মধ্যে অনেকেই আছে যাদের মুখে রুচি নেই। ফলে তারা খাবার-দাবার ঠিকভাবে খেতে পারে না। বিশেষ করে আমার বন্ধু শাহরিয়ার সে খুবই কম ভাত খায়।

তার কারণ তার মুখে রুচি নেই। তাই আমি তাকে একদিন সকালে বললাম বন্ধু তুই আমালকি খেতে পারস। কেননা এই ফলটি আপনার রুচি বৃদ্ধিতে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে। 

খিদা বৃদ্ধিতে আমলকি

খিদা বৃদ্ধিতে আমলকির কোন ঝুড়ি নেই। খিদা বাড়াতে আমলেকি খুবই সহায়ক। আর অনেকেই আমলকি খেয়ে খিদা বাড়াতে সক্ষম হয়েছে। 

ডায়রিয়া থেকে বাঁচতে আমলকি

বিশেষ করে বাচ্চাদের ডায়রিয়া হয়ে থাকে। তাই এই রোগ থেকে বাঁচতে আপনি তাদেরকে প্রতিদিন আমালকি খাওয়াতে পারেন। অথবা আমাদের মধ্যে যারা পেটের সমস্যা দীর্ঘদিন ধরে ভুগছেন, তারা তাদের খাদ্যতালিকায় আমলকি রাখবেন। 

পাইলস রোগ দূর করতে আমলকি 

পাইলস রোগ দূর করতে আমলকি খুবই সহায়ক ভূমিকা পালন করে। পাইলস এমন একটি রোগ যা মলদ্বারের ত্বকের নিচের এর জন্ম। পাইলস দুই ধরনের হয়ে থাকে এক হচ্ছে বাহ্যিক আর অন্যটি হচ্ছে অভ্যন্তরীণ পাইলস।

আপনি যদি এই রোগ থেকে বাঁচতে চান,তাহলে আপনাকে ফলমূল খেতে হবে। আর আমরা ইতিপূর্বে জেনেছি যে আমলকি এমন একটি ফল যা পাইলস রোগ দূর করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। 

রক্ত বৃদ্ধিতে আমলকি

আমাদের মধ্যে অনেকেই রক্ত শূন্যতায় ভুগছি। তাই আমি তাদেরকে বলবো আপ্নারা প্রতিদিন আমালকি খেতে পারেন।

কেননা তা রক্ত তৈরিতে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে। পাশাপাশি বিভিন্ন রক্ত কনিকার মধ্যে লোহিত রক্ত কনিকা বাড়াতে সহায়ক হবে। 

আমলকির আরো কিছু উপকারিতা এক পলকে দেখে নিন 

  • আমলকি দাত ও নখ পরিস্কার রাখতে লোহিত রক্ত কনিকার সংখ্যা বাড়ায় এবং আমদের এই গুরত্বপূর্ণ বিশেষ অংশকে পরিস্কার রাখে। 
  • আমাদের দেহের ফ্রিরেডিকেল প্রতিরোধ করে। কেননা এই ফলে বিদ্যমান এন্টিঅক্সিডেন্ট ফ্রিরেডিকেল ধ্বংস করে দেয়।
  • পেটের ভুড়ি কমাতে সাহায্য করে।
  • যৌনশক্তি বৃদ্ধিতে আমলকি সহায়ক ভূমিকা পালন করে।
  • চুলের সমস্যা লাগবে আমলকি খেতে পারেন।পাশাপাশি আপনার চুল পড়া বন্ধ হয়ে যাবে এবং চুলের রং কালো করতে সাহায্য করবে ইনশাল্লাহ। পরিশেষে আমাদের চুলের গোড়া অনেক শক্ত হয়ে যাবে। 
  • আমাদের মধ্যে অনেকেই আছে যাদের রাতে ঘুম হয় না। তাদের জন্যই আমলকি হতে পারে প্রতিষেধক। 
  • আমাদের মধ্যে অনেকেই আছে যারা ল্যাপটপের দিকে অথবা মোবাইলে অনেকক্ষণ তাকিয়ে থাকার কারণে তাদের চোখ থেকে জল পরে এবং চোখ চুলকায়। তারা আমলকি খেতে পারেন। কেননা তা চোখের জুতি বৃদ্ধিতে সহায়ক। 
  • গর্ভবতী মহিলাদের কে আমি বলব আপনারা আমলকি খান। তাতে আপনার বাচ্চা পুষ্টি পাবে। পাশাপাশি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়বে।

আমলকির অপকারিতা জেনে নিন

একটি জিনিস মাথায় রাখবেন কোন কিছু অতিরিক্ত ভালো নয়। ঠিক সেভাবে আপনি যদি আমলকি অতিরিক্ত খান, তাহলে তা আপনার জন্য ক্ষতি হতে পারে।

আমরা ইতিপূর্বে জেনেছি আমলকিতে রয়েছে প্রচুর ভিটামিন এবং ফাইবার। ফলে যে ব্যক্তি পরিমাণের চেয়ে বেশি খাবে।

সে বিভিন্ন ধরনের সমস্যায় ভুগতে পারে বিশেষ করে ডায়রিয়া তো তাকে ছাড়বেই না। আমলকি অতিরিক্ত খেলে আপনার সর্দি কাশি হতে পারে।

এই ফলে একটি বিশেষ উপাদান আছে যার নাম পটাশিয়াম। তাই আমাদের মধ্যে যারা কিডনি অথবা ডায়াবেটিস রোগে ভুগছেন তারা একটু সাবধান খাবেন।

তবে যে যাই বলুক না কেন আয়ুর্বেদিক চিকিৎসা মতে আমলকি খুবই উপকারি একটি ফল। আশা করি আমলকির উপকারিতা ও অপকারিতা সম্পর্কে বিস্তারিত জেনেছেন। এবং আমাদের ফেসবুক পেইজের সাথে যুক্ত থাকুন।  

Leave a Reply

Your email address will not be published.