সুন্দর ত্বকের জন্য প্রতিদিনের রুটিন জানুন।

আজ আমি সুন্দর ত্বকের জন্য প্রতিদিনের রুটিন নিয়ে আলোচনা করব।

আমরা যখন শিশু ছিলাম তখন দেখতাম আমাদের দাদী অথবা নারীরা তাদের ত্বক খুবই ভালো এবং  তাদের চুলগুলোও অনেক সুন্দর। 

বর্তমানের চেয়ে তখনকার সময়ে তাদের দাঁতগুলো ছিল খুবই মজবুত।

কেননা দিন যতই যাচ্ছে ততই বিভিন্ন কারণে আমাদের পরিবেশ দূষিত হচ্ছে।

ফলে আমাদের মানুষের ওপর এর ক্ষতিকর প্রভাব পড়ছে।

আপনি যদি এখন একজন ব্যক্তির দিকে তাকান তাহলেই বুঝতে পারবেন যে তার বয়সের তুলনায় অনেকটাই বার্ধক্যে পৌঁছে গেছে।

তার একমাত্র কারণ হল আমরা ঠিকঠাক ভাবেই আমাদের ত্বকের যত্ন নেই না। পাশাপাশি আমাদের পরিবেশগত কারণে এই ঘটনা ঘটে।

কেননা আমাদের পরিবেশে বিভিন্ন ধরনের অস্বাস্থ্যকর বিষয় রয়েছে যা আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য খুবই ঝুঁকি। 

এমনকি আমাদের মধ্যে অনেকেই যখন দেখে যে তার ত্বকে বিভিন্ন কালো দাগ রয়েছে।

তারা পার্লারে গিয়ে একদিনে সুন্দর হতে চায় কিন্তু আসলে এটা অনেকটাই খারাপ।

একটা জিনিস মাথায় রাখবেন কোন কিছুই তাড়াতাড়ি ভালো না অর্থাৎ একটা জিনিস যখন আপনি তাড়াতাড়ি সফল হবেন। তার ব্যর্থতাও তাড়াতাড়ি আসবে।

তাই আপনি যখন একটি কাজ প্রতিদিন একটু একটু করে করবেন তখন দেখবেন যে আপনার কাজটি সহজে সম্পন্ন হয়ে যাবে। এবং আপনি সেখানে সফল হবেন।

ঠিক তদ্রূপ ভাবে আপনারা যদি ত্বকের যত্ন একটু একটু করে প্রতিদিন নিন।

তাহলে দেখা যাবে আপনার ত্বক খুব সুন্দর হয়ে উঠবে এবং খুবই মলিন হবে।

আর তা দীর্ঘস্থায়ী হবে। তাই আমাদের প্রত্যেকের উচিত রুটিন মেনে ত্বকের যত্ন নেওয়া  উচিত।

এইজন্য আমি সুন্দর ত্বকের জন্য প্রতিদিনের রুটিন নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব।

আপনারা যদি এই রুটিন অনুসরণ করেন আশা করি আপনারা সফলতা পাবেন।

সুন্দর ত্বকের জন্য প্রতিদিনের রুটিন দুই ভাবে করা যায়।

প্রথমটি হচ্ছে দিনের বেলায় ত্বকের যত্ন নেওয়া। দ্বিতীয়টি হল রাতের বেলায় ত্বকের যত্ন নেওয়া। 

দিনের বেলায় ত্বকের যত্ন নেওয়ার রুটিন (সুন্দর ত্বকের জন্য প্রতিদিনের রুটিন)

দিন অথবা রাত যেকোনো সময়ই আমাদের একটি নিয়ম মেনে চলা প্রয়োজন ত্বকের জন্য।

আমাদের মধ্যে অনেক মা-বোনেরা আছে যারা কোন প্রসাধনীর পর কোনটি ব্যবহার করা প্রয়োজন ত্বকের উপর তা জানেনা।

একজন  নারীকে বাজার করতে অথবা ছেলেমেয়েকে স্কুল অথবা নার্সারিতে পৌঁছে দেওয়ার জন্য তাদেরকে বাড়ি  থেকে বের হতেই হয়।

তাই প্রত্যেকের সকালবেলা এমনভাবে ত্বকের যত্ন নিতে হবে যাতে সূর্যের ক্ষতিকারক বেগুনি রশ্মি ত্বকের ক্ষতি না করতে পারে।

পাশাপাশি আমাদের রাস্তায় ধুলাবালি ও বায়ুদূষণ যাতে আমাদের ত্বকের উপর প্রভাব ফেলতে না পারে।

তাই আমি দিনের বেলায় ত্বকের যত্ন নেওয়ার জন্য ছয়টি ধাপ বলব সেগুলো আপনারা অনুসরণ করবেন।

আরো পড়ুনঃ পক্সের দাগ দূর করার ঘরোয়া উপায়

প্রথম ধাপ ত্বক পরিষ্কার করা (সুন্দর ত্বকের জন্য প্রতিদিনের রুটিন)

আমরা যখন ঘুম থেকে উঠি অনেকেই আমাদের পক্ষ থেকে মুখ পরিষ্কার করি না।

তাই আমাদের ঘুম থেকে উঠার পর পরই হালকা গরম অথবা ঠান্ডা পানি ত্বকে দিন।

তারপর যেকোনো ধরনের ফেসওয়াশ দিয়ে আপনার মুখটি ভালো করে ক্লিন করুন। 

দ্বিতীয় দাপ-এ টোনার ব্যবহার করুন

আমাদের মধ্যে অনেকেই আছে সকালে ফেসওয়াশ অথবা যে কোনভাবে ত্বক পরিষ্কার করেই এই ধাপটি এড়িয়ে যান। 

অর্থাৎ কেউ টোনার ব্যবহার করে না যা অত্যন্ত দুঃখজনক।

আবার আমাদের মধ্যে অনেকেই মনে করেন যে টোনার আমাদের ত্বকের জন্য বিপদজনক।

কিন্তু আসলে তা সত্যি নয়। আপনি যদি মার্কেটে যান তাহলেই ত্বকের ধরণ অনুযায়ী টোনার পাবেন।

কিছু কিছু টোনারে গুরুত্বপূর্ণ কিছু বিশেষ উপাদান পাওয়া যায় যা আমাদের ত্বকের জন্য খুবই উপকারী।

এর উপাদান গুলি হল এন্টি-অক্সিডেন্ট এবং ভিটামিন বি। এখন আমাকে বলতে পারেন ভাই টোনারের প্রধান কাজ কি?

এর প্রধান কাজ হল ত্বকের পিএইচপি ঠিক রাখা। তবে একটি জিনিস মাথায় রাখবেন আপনার ক্লিনজার যদি ত্বকের পিএইচপি ঠিক করার সক্ষমতা রাখে, তাহলে এই ধাপটি না সম্পন্ন করলেও হবে।

তবে একটি জিনিস মাথায় রাখবেন টোনার ক্রয় করার আগে আপনার ত্বকের ধরন কি তা অবশ্যই জেনে নেবেন। কেননা বাজারে কয়েক রকম এর টোনার পাওয়া যায়।

প্রথমটি হলো অ্যালকোহল যুক্ত এবং দ্বিতীয়টি ওয়াটার যুক্ত টোনার। আর অ্যালকোহল টোনারের কাজ হলো ত্বকের তেলজাতীয় পদার্থ শুষে নিয়ে ত্বককে শুষ্ক রাখা। কিন্তু ওয়াটার যুক্ত টোনারে এসব উপাদান পাওয়া যায় না।

তৃতীয় ধাপে এন্টিঅক্সিডেন্ট সিরাম ব্যবহার করুন (সুন্দর ত্বকের জন্য প্রতিদিনের রুটিন)

এই সিরাম প্রসাধনটি ত্বকের জন্য খুবই উপকারী। কেননা এতে বিভিন্ন ধরনের উপকারী উপাদান রয়েছে।

তাই আপনি টোনার ব্যবহার না করলেও এন্টি অক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ সিরাম ব্যবহার করুন। এই  সিরামটি দিনের বেলায় ব্যবহার করুন।

এই সিরামটি ত্বকের জ্বালা এবং যন্ত্রণা দূর করতে সহায়ক ভূমিকা পালন করে।

পাশাপাশি বায়ু দূষণ এবং সূর্যের ক্ষতিকারক রশ্নি থেকে আপনাকে বাঁচাবে।

চতুর্থ ধাপে আইস ক্রিম ব্যবহার করুন (সুন্দর ত্বকের জন্য প্রতিদিনের রুটিন)

আমি বিশেষ করে মেয়েদেরকে একটা কথাই বলবো আপনাদের বয়স যখন বিশ পের হবে তখন মুখে দৈনিক দুইবার আইসক্রিম ব্যবহার করুন।

পাশা পাশি আমরা এটাও জানি যে আমাদের মুখের ত্বক এবং চোখের চারপাশের ত্বক একরকম নয়।

চোখের ত্বক মুখের ত্বকের চেয়ে অনেকটাই নরম হয়।

তাই আমাদের এমন আইস ক্রিম মুখে ব্যবহার করা উচিত যা কোলাজেন এবং বলিরেখা রক্ষা করে।

এসপিএফ যুক্ত আইস ক্রিম ত্বকের জন্য খুবই উপকারী।

এমনকি ত্বক বিশেষজ্ঞরা এই আইস ক্রিম ব্যবহার করার জন্য সবাইকে পরামর্শ দিয়েছেন।

এই আইসক্রিমটি আপনাকে সূর্যের ক্ষতিকারক রশ্নি থেকে বাঁচাতে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে।

একটি জিনিস মাথায় রাখবেন আপনি যদি কখনো আইস ক্রিম ব্যবহার না করে থাকেন তাহলে তা ব্যবহার করার সাথে সাথেই এর ফলাফল পাবেন না।

এর জন্য আপনাকে কিছুদিন ধৈর্য্য ধরে ব্যবহার করতে হবে। আস্তে আস্তে দেখবেন আপনি এর সুফল পেয়েছেন। 

পঞ্চম ধাপে স্পট চিকিৎসা করুন (সুন্দর ত্বকের জন্য প্রতিদিনের রুটিন)

আমাদের মধ্যে অনেকেরই মুখে আছে বিভিন্ন ধরনের ব্রুণ অথবা স্পট।

আর তা যদি আপনার হয়ে থাকে তাহলে এই ধাপটি আপনার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

তবে একটি জিনিস মাথায় রাখবেন এই চিকিৎসা করার পূর্বে একজন ত্বক বিশেষজ্ঞের পরামর্শ করা উচিত।

স্পট চিকিৎসা করার জন্য বেঞ্জল প্যারক্স্যাইড সমৃদ্ধ ক্রিম ব্যবহার করবেন।

তবে একটি জিনিস মাথায় রাখবেন পুরো মুখি এই ক্রিম ব্যবহার করবেন না। কেননা এই ক্রিম এর প্রধান কাজ হলো ত্বককে সম্পূর্ণভাবে শুষ্ক করে দেওয়া।

তাই যতটুকু প্রয়োজন ঠিক ততটুকুই আপনার মুখে ব্যবহার করবেন।

ষষ্ঠ ধাপে ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করুন 

ত্বকের যত্নে ময়েশ্চারাইজার খুবই সহায়ক ভূমিকা পালন করে। আমাদের অনেকের মধ্যে আছে যাদের ত্বক তৈলাক্ত তারা ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করেন না।

কিন্তু তাদেরও ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করা উচিত। ত্বকের তৈলাক্ত ভাব দূর করার জন্য আমাদের ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করতে হয়। 

সর্বশেষ ধাপে সানস্ক্রিন ব্যবহার করুন

দিনের ত্বকের যত্ন নেওয়ার ক্ষেত্রে সর্বশেষ ধাপ সানস্ক্রিন ব্যবহার করতে পারেন। তবে একটি জিনিস মাথায় রাখবেন আপনি যদি রাসায়নিকযুক্ত সানস্ক্রিন ব্যবহার করেন, তাহলে মশ্চারাইজার মুখে লাগানোর কিছুক্ষণ পর ব্যবহার করবেন।

কিন্তু ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করার আগে সানস্ক্রিন ব্যবহার করলে এর কার্যকারিতা কখনো পাবেন না। তাই আমাদের জিঙ্কযুক্ত সানস্ক্রিন ব্যবহার করা উচিত। 

রাতের বেলা ত্বকের যত্ন নেওয়ার রুটিন

সুন্দর ত্বকের জন্য প্রতিদিনের রুটিন
সুন্দর ত্বকের জন্য প্রতিদিনের রুটিন

রাতের বেলায় ত্বকের যত্ন নেওয়ার ছয়টি ধাপ নিচে আলোচনা করা হলো। প্রথম ধাপ হলো ডাবল ক্লিনজিং করা।

এটা এমন একটি পদ্ধতি যেখানে প্রথমে আপনার মুখে যত ময়লা আছে সেগুলো তুলে ফেলা। তারপর যেকোন ধরনের ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ পরিষ্কার করা।

দ্বিতীয় ধাপে টোনার অথবা এসেন্স এবং বুস্টার ব্যবহার করতে পারেন। আশাকরি ইতিপূর্বে জেনেছেন কিভাবে টোনার ব্যবহার করবেন।

কিন্তু আপনি যদি রাতে একটু ত্বকের ভালো যত্ন নিতে চান, তাহলে টোনার এবং  এসেন্স ব্যবহার করতে পারেন।

তবে একটি জিনিস মাথায় রাখতে হবে যদি আগে টোনার ব্যবহার তারপর এসেন্স ত্বকে ব্যবহার করবেন না।

তৃতীয় ধাপে আইস ক্রিম ব্যবহার করতে পারেন। আমি ইতিপূর্বে আইসক্রিম সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য আপনাদের বলেছি।

চতুর্থ ধাপে সিরাম, ক্রিম ও প্যাড ব্যবহার করতে পারেন। তবে এগুলো যখন ব্যবহার করবেন আপনাদের কিছু জিনিস মাথায় রাখতে হবে।

কখনো একসাথে প্যাড, পিল এবং মাস্ক মুখে ব্যবহার করবেন না। প্রতি সপ্তাহে তিনবার এক্সফোলিয়েশন করবেন। এক্সফোলিয়েশন করার সময় রেটিনোল সমৃদ্ধ ক্রিম ব্যবহার করবেন না।

পঞ্চম ধাপে হাইড্রেটিং মাস্ক ব্যবহার করবেন। ত্বকের আর্দ্রতা বাড়াতে হাইড্রেটিং মাস্ক সহায়ক ভূমিকা পালন করে।

ষষ্ঠ ধাপে নাইট ক্রিম ব্যবহার করবেন। এই ক্রিমটি ঘুমানোর আগে ব্যবহার করবেন।

আশা করি সুন্দর ত্বকের জন্য প্রতিদিনের রুটিন সম্পর্কে বিস্তারিত জেনেছেন। আমাদের ফেসবুক পেইজে যুক্ত হোন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.